শাহী মুদ্রা

মুদ্রার মূল্যমান আল্লাহ্‌ নির্ধারিত। আল্লাহ্‌ হলেন বাদশাহ। তার রাজত্বে অন্য কারো অধিকার নেই এক টুকরা কাগজে নাম্বার লিখে সেটাকে মূল্যবান বানানোর। আল্লাহ্‌ কর্তৃক নির্ধারিত এবং সব নবী আলাইহিমুস সালামদের সুন্নাহ হলো সোনা ও রূপার মুদ্রা। এটা কুরআন ও হাদীস দ্বারা স্বীকৃত। যদি সোনা রূপার অভাব হয় তাহলে খেজুর, গম ইত্যাদি যেগুলো দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করা যায়। কিন্তু পিয়াজ মরিচ গরু ছাগল নয়। — কাগজের মুদ্রা ব্যবহার করা যাবে তখনই যখন তা সোনা ও রূপ দ্বারা ব্যাকিং পাবে। কিন্তু আজ বাংলাদেশের টাকা ব্যাকিং পায় ডলার দিয়ে, ইন্ডিয়া পাকিস্তানের রূপি ব্যাকিং পায় ডলার দিয়ে, মালয়েশিয়ার রিংগিত ব্যাকিং পায় ডলার দিয়ে। আইন করে আন্তর্জাতিকভাবে সোনা ও রূপার মুদ্রা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এভাবে ডলার আল্লাহ্‌র সাম্রাজ্যে আল্লাহ্‌র মুদ্রাকে অন্যায়ভাবে হঠিয়ে দিয়ে নিজে মালিক হয়েছে। এটাই শিরক। এর কোন ক্ষমা নেই। কিয়ামতের দিন আল্লাহ্‌ আসমান জমিনকে তার হাতে পেচিয়ে নিবেন। তারপর বলবেন, দুনিয়ার রাজা বাদশারা আজকে কোথায়? — এটি একটি ভয়াবহ বিষয়। এই শীরক সম্পর্কে না জানলে মানুষ তওবা করার সুযোগ পাবে না। এজন্যই বলা হয়, কিয়ামতের আগে তওবার দরজা বন্ধ হয়ে যাবে। —- এসব অনেক অনেক কথা। একটা বলতে গেলে আরেকটা আসে। ধীরে ধীরে স্টাডি করুন। বইটি ডাওনলোড করে নিন।

আপনি ৫০ টাকা দিয়ে ১ কেজি চাল কিনতে পারেন না। কারণ চাল আল্লাহ্‌র সৃষ্টি আর কাগজের মূল্য মানুষ কর্তৃক নির্ধারিত। চাল একটি অমূল্য ধন। আপনার জিনিসের দাম কি আরেকজন নির্ধারণ করতে পারে? এজন্য ১ কেজি চাল কিনতে গেলে আপনাকে সুন্নতী মুদ্রা ব্যবহার করতে হবে। আপনাকে স্বর্ণমুদ্রা লাগবে। কারণ স্বর্ণ আল্লাহ্‌র সৃষ্টি। হ্যাঁ, আপনার কাছে ১০ গ্রামের স্বর্ণ আছে। আপনি ১ কেজি চাল কিনতে ১০ গ্রাম সোনা দিবেন না। তাই আপনি সোনার বিপরীতে ১০০০ বা ২০০০ ছোট ছোট নোট বানাবেন। এই নোটগুলোর মাদার হচ্ছে সোনা। তখন আপনি এই নোট দিয়ে যদি সেই চাল কিনেন তাহলে প্রকৃতপক্ষে আপনি চালের বদলে সোনাই বিনিময় করলেন। — মুসলমানদের খলিফা যিনি প্রকৃতপক্ষে আল্লাহ্‌রই খলিফা হয়ে কুরআন সুন্নাহ মতো শাসনকাজ করেন, তিনিই কেন্দ্রীয়ভাবে এই কাজটি করিবেন। চাহিবামাত্র সেই প্রকৃত নোটগুলোর বাহককে খলিফার অর্থমন্ত্রী নোটে লেখা সমপরিমাণের সোনা বা রূপা দিতে বাধ্য থাকিবেন।

ডাওনলোড লিঙ্কঃ 

স্বর্ণ ও রৌপ্যমুদ্রা – ইসলামের দৃষ্টিতে অর্থের ভবিষ্যত। 

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s