তারা নেমে এসেছে

এবং যে শহর [জেরুজালেম] আমরা ধ্বংস করে তার অধিবাসীদের [বনী ইজরায়েলের] জন্য হারাম করে দিয়েছি, তারা পুনরায় সে শহরে ফিরে আসতে পারবে না [ইজরায়েল রাষ্ট্র গঠিত হবে না] যতক্ষণ না ইয়াজুজ মাজুজদের [খাজার ইউরোপীয়] প্রাচীর খুলে যায় এবং তারা প্রত্যেক উচ্চভূমি থেকে নেমে আসে [ব্রিটেন ও আমেরিকার সমগ্র বিশ্বদখল বা কলোনাইজেশন]। 
(সুরা আম্বিয়া: ৯৫-৯৬)

শব্দবিশ্লেষণ:

১। ওয়া হারামুন = এবং [ওয়া] + হারাম বা নিষিদ্ধ [হারামুন]
২। ‘আলা = উপর
৩। ক্বারিয়াতিন = একটি শহর বা শহরটি বা জনপদটি (ক্বারিয়াহ)
—> ওয়া হারামুন ‘আলা ক্বারিয়াহ = যে শহরটি নিষিদ্ধ করেছি
৪। আহলাকনাহা = যা আমরা ধ্বংস করেছি
—> ওয়া হারামুন ‘আলা ক্বারিয়াতিন আহলাকনাহা = যে শহরটি আমরা ধ্বংস করে হারাম করে দিয়েছি (তার অধিবাসীদের জন্য)
৫। আন্নাহুম = যে তারা (অর্থাৎ ঐ শহরের অধিবাসীরা)
৬। লা ইয়ারজিউন = না (লা) + ফিরে আসবে বা প্রত্যাবর্তন করবে (ইয়ারজিউন)
—> আন্নাহুম লা ইয়ারজিউন = যে তারা (ঐ শহরের অধিবাসীরা) ফিরে আসবে না বা প্রত্যাবর্তন করবে না
৭। হাত্তা = যতক্ষণ না
৮। ইযা ফুতিহাত = যখন (ইযা) খুলে যাচ্ছে (ফুতিহাত) [ফুতিহাত এসেছে ফাতিহা থেকে। আমরা জানি, “আলহামদু” সুরাকে সুরা ফাতিহা বলা হয় কারণ এই সুরা দিয়ে পবিত্র কোরআন খুলে বা সুচনা হয়। ফাতিহা অর্থ খোলা বা সুচনা বা ওপেনিং।]
৯। ইয়া’জুজু ওয়া মা’জুজু = ইয়াজুজ এবং [ওয়া] মাজুজ
—> হাত্তা ইযা ফুতিহাত ইয়া’জুজু ওয়া মা’জুজু = যতক্ষণ না ইয়াজুজ ও মাজুজের [প্রাচীর] খুলে যাচ্ছে।
১০। ওয়া হুম = এবং [ওয়া] তারা [হুম]
১১। মিন = থেকে
১২। কুল্লি = প্রত্যেক
১৩। হাদাবিন = উচ্চভূমি
১৪। ইয়ানসিলুন = নেমে আসে বা ছড়িয়ে পড়ে।

—> ওয়া হুম মিন কুল্লি হাদাবিন ইয়ানসিলুন = এবং তারা প্রত্যেক উচ্চভূমি থেকে নেমে আসে বা ছড়িয়ে পড়ে। অর্থাৎ ইয়াজুজ মাজুজদের ওয়ার্ল্ড অর্ডার বা বিশ্ব ব্যবস্থা কায়েম হয়।

এই আয়াত থেকে আমরা বুঝতে পারি, ইয়াজুজ মাজুজ হচ্ছে খাজার ইউরোপীয় ইহুদি-খ্রিস্ট জায়োনিস্ট এলায়েন্স যারা প্রথমে ব্রিটিশ সাম্রাজ্য দ্বারা সমগ্র বিশ্ব দখল করে “ইয়ুনসিলুন” হয় ও সমগ্র বিশ্বে নিজেদের ঈশ্বরবিমুখ সেক্যুলার শরীয়াহ কায়েম করে বিশ্ববাসীকে তাদের কারবনকপিতে পরিণত করে এবং বনী ইজরায়েলকে ২০০০ বছর পর আল্লাহ কর্তৃক নিষেধাজ্ঞা জারি করা ক্বারিয়াহ বা শহর জেরুজালেমে ফিরিয়ে এনে ইজরায়েল রাস্ট্র গঠন করে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর তারা আমেরিকার দ্বারা তাদের এই “ইয়ুনসিলুন” বজায় রাখে। তাই আমরা দক্ষিণ চীন সাগরে গেলেও মার্কিন রণতরী দেখতে পাব, ভারত মহাসাগরে গেলেও মার্কিন রণতরী দেখতে পাব, পারস্য উপসাগরে গেলেও মার্কিন রণতরী দেখতে পাব, আর্কটিক মহাসাগরেও মার্কিন রণতরী দেখতে পাব। কারণ হলো “ইয়ুনসিলুন”। ইয়াজুজ মাজুজ বা খাজার ইউরোপীয় ইহুদি-খ্রিস্ট জায়োনিস্ট এলায়েন্সের বিরুদ্ধে যারাই দাঁড়াবে, হোক সে সুন্নি মুসলিম অঞ্চল চেচনিয়া ও প্রিয় নেতা রমজান কাদিরভ, হোক সে শিয়া মুসলিম দেশ ইরান, হোক সে অর্থোডক্স খ্রিস্ট দেশ রাশিয়া ও প্রিয় নেতা ভ্লাদিমির পুতিন বা হোক সে আসমানি কিতাবের জ্ঞানহীন চীন ও উত্তর কোরিয়া; তারা আমাদের বন্ধু। আমরা তাদের ভালবাসি।

Md Arefin Showrav 
http://bit.ly/2vuSBQf

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s